নকলায় জুয়া খেলাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের আঘাতে নিহত ১ ॥ গ্রেফতার ৪

78

মো. মোশারফ হোসাইন: শেরপুর জেলার নকলা উপজেলায় জুয়া খেলাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের আঘাতে ইজ্জত আলী (৩৬) নামে এক জুয়ারী নিহত হয়েছে। ৫ আগস্ট বুধবার ভোরে উপজেলার চরঅষ্টধর ইউনিয়নের নারায়ণখোলা গ্রামের চরবসন্তী এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। নিহত ইজ্জত আলী চরঅষ্টধর ইউনিয়নের চরবসন্তী পশ্চিমপাড়া এলাকার আব্দুছ সালামের ছেলে ও মৌসুমী ফল বিক্রেতা।

এবিষয়ে নিহতের স্ত্রী সুমি আক্তার বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৪/৫ কে আসামী করে নকলা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। আসামীদের মধ্যে ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে নকলা থানার পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- চরবসন্তী পশ্চিমপাড়া এলাকার আব্দুল কাশেমের ছেলে সোহাগ মিয়া (২৭), কালাম মিয়ার ছেলে মাজু মিয়া (২৬), মৃত হযরত আলীর ছেলে হাসেম আলী (৩০) ও চরবসন্তী পূর্বপাড়া এলাকার সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য মোছা. লূৎফা বেগমের ছেলে নূর ইসলাম।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ইজ্জত আলী মঙ্গলবার রাতে বাড়ি থেকে বেড়িয়ে যায়। পরে বুধবার ভোরে চরবসন্তী পশ্চিমপাড়া এলাকার কালাম মিয়ার ছেলে মাজু মিয়া ও একই এলাকার মৃত হযরত আলীর ছেলে হাসেম আলী ইজ্জত আলীকে গুরুতর আহত অবস্থায় তার বাড়িতে রেখে কৌশলে পালিয়ে যায়। এর কিছুক্ষণ পর ইজ্জত আলী মারা যায়।

স্থানীয়দের জিজ্ঞাসায় জানা গেছে, মঙ্গলবার রাতে ইজ্জত আলীসহ কয়েকজন মিলে জুয়া খেলার আসরে বসে। খেলার একপর্যায়ে ইজ্জত আলীর বেশ লাভ হলে সে আসর থেকে ওঠে আসতে চাইলে অন্যান্য জুয়ারীরা তাকে আসতে বাধা দিলে তর্কাতর্কি শুরু হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ৪/৫ মিলে এলোপাথারি মারধর করায় ইজ্জত আলী গুরুতর আহত হয়ে পড়ে। পরে হাসেম ও মাজু মিয়া ইজ্জত আলীকে তার বাড়িতে পৌঁছে দিয়ে পালিয়ে যায়।

নকলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলমগীর হোসেন শাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এবিষয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। পরে নকলা থানার পুলিশ ৪ আসামীকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেছে। ইজ্জত আলীর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এব্যাপারে অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।