শেরপুর প্রতিদিন ডট কম

Home সারাদেশ চাচাতো বোনকে বিয়ে করে হত্যার শিকার ময়মনসিংহের সৌরভের দাফন সম্পন্ন
চাচাতো বোনকে বিয়ে করে হত্যার শিকার ময়মনসিংহের সৌরভের দাফন সম্পন্ন

চাচাতো বোনকে বিয়ে করে হত্যার শিকার ময়মনসিংহের সৌরভের দাফন সম্পন্ন

চাচাতো বোনকে বিয়ে করে ময়মনসিংহে নির্মম হত্যার শিকার ওমর ফারুক সৌরভকে নিজ বাড়ির পাশে দাফন করা হয়েছে। এর আগে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে তার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। সোমবার (৩ জুন) রাতে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার তারাটি গ্রামের বাড়িতে নিহত সৌরভের মরদেহ নিয়ে গেলে স্বজনরা আহাজারি করেন। এ সময় তার বাড়িতে আত্মীয়সহ প্রতিবেশীরা ভিড় করতে থাকেন।
সৌরভের পরিবার স্থায়ীভাবে ঢাকার মতিঝিলে বসবাস করে। সৌরভ গুলশানের প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ছাত্র ছিলেন। তার বাবার নাম ইউসুফ আলী।
নিহত সৌরভের মা মাহমুদা আক্তার বলেন, ছেলেকে নিয়ে আমার অনেক স্বপ্ন ছিল। এখন সব স্বপ্ন শেষ হয়ে গেছে। ছেলেকে যারা হত্যা করেছে, তাদের আমি ফাঁসি চাই।
জানা যায়, ওমর ফারুক সৌরভ ও চাচাতো বোন ইসরাত জাহান ইভার দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ভালোবেসে বিয়ের বন্ধনেও আবদ্ধ হয়েছিলেন তারা। প্রথমে দুই পরিবারের কেউই বিষয়টি মেনে নেয়নি। তবে একপর্যায়ে সৌরভের পরিবার মেনে নিলেও ইভার পরিবার মানেনি। সৌরভকে ডিভোর্স দিতেও চাপ দেওয়া হয়। তবে সৌরভ স্ত্রীকে ছাড়া থাকতে নারাজ। উপায় না পেয়ে ইভাকে কানাডা পাঠিয়ে দেয় তার পরিবার। এরপর দুই পরিবারের দ্বন্দ্ব আরও প্রকট হয়। এর জেরেই সৌরভ তার আপন চাচার হাতে খুন হয়েছেন বলে দাবি পরিবারের।
উল্লেখ্য, রোববার (৩ জুন) দুপুরে ময়মনসিংহ সদর উপজেলার মনতলা এলাকায় ব্রিজের নিচ থেকে ওমর ফারুক সৌরভের খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মরদেহের দুই পা ও মাথা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন ছিল। কালো রঙের একটি লাগেজে শরীরসহ দুই পা এবং পলিথিনে খণ্ডিত মাথা মোড়ানো ছিল।
এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ওমর ফারুকের বাবা ইউসুফ আলী বাদী হয়ে রোববার রাতেই ময়মনসিংহের কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইন উদ্দিন জানান, অপরাধীদের দ্রুত গ্রেফতারে তারা কাজ করছেন।


LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

one × 3 =