নকলায় পিতাপুত্রসহ আহত ৪: বাড়িঘরে লুটপাটের অভিযোগ

862

স্টাফ রিপোর্টার: শেরপুরের নকলায় জমি সংক্রান্ত বিরোধ ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বাবা–ছেলে, স্ত্রীসহসহ চারজনকে জখম, শ্লীলতাহানী ও বাড়িঘর ভাংচুরসহ লুটপাট করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার (১০আগস্ট) দুপুরের দিকে উপজেলার কলাপাড়া এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে।

আহত চারজন হলেন বাবা রফিকুল ইসলাম (৪৮), ছেলে রবিন মিয়া (১৭), স্ত্রী বিউটি বেগম (৪০) ও ভাতিজা নাহিদ মিয়া (১৯)। তাঁরা সবাই নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন। এ ঘটনায় ১২জনসহ আরো অজ্ঞাতনামা ২/৩জনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী ও থানার অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, রফিকুল ইসলামদের সাথে প্রতিবেশি আ: রশিদ গংদের সাথে জমিজমা ও পারিবারিক বিষয়াদী নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জেরে মঙ্গলবার দুপুরে রফিকুল ইসলামগংদের বশতবাড়িতে প্রবেশ করে আ: রশিদের হুকুমে সেলিম মিয়া দা দিয়ে রবিন মিয়ার মাথায় কুপ মারে। আ: মজিদ লোহার রড দিয়ে রফিকুল ইসলামকে বারি মারিয়া জখম করে। পরে এক পর্যায়ে আ: রশিদ, শহিদ মিয়া, আ: মজিদ মিয়া, সেলিম মিয়া, লিখন মিয়া, মজিবর রহমান, আ: রাজ্জাক, সজিব মিয়া, সুরাইয়্যা বেগম, তাসলি বেগম, সুরাইয়্যা খাতুন, মানিক মিয়াসহ আরো অজ্ঞাতনামা ২/৩জন বাঁশের লাঠি ও রড দিয়ে রবিন, নাহিদ ও বিউটি বেগমকে বাইরাইয়্যা মারপিট করে জখম করে। প্রতিপক্ষ আ: রাজ্জাকের বিরোদ্ধে রফিকুল ইসলামের স্ত্রীকে শ্লীলতাহানী করার অভিযোগও উঠেছে। পরে প্রতিপক্ষরা বশতঘরের সুকেজে থাকা ধান ও গরু বেঁচা ৪লাখ টাকা লুটকরে এবং ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে আরো অনুমান ৩০ হাজার টাকার মালামাল ক্ষতিগ্রস্থ করে।এ ঘটনায় অভিযোগে উল্লেখিত বিবাদীদের সাথে একাধীকবার যোগাযোগ করার চেষ্ঠা করেও তাদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। অভিযোগকারী রফিকুল ইসলাম জানান ঘটনার ও নকলা থানায় লিখিত অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মুশফিকুর রহমান এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেন বলেন, উপজেলা কলাপাড়া এলাকায় একটি মারামারির ঘটনা ঘটে। পরে রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় ১২জনসহ আরো অজ্ঞাতনামা ২/৩জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগটি তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।